পৃথিবীতে কিভাবে প্রথম প্রানের উদ্ভব হয়েছিল বিজ্ঞানিরা তার একটা প্রমান পেয়েছেন!

প্রথম প্রানের উদ্ভব

জীবের কোন সংস্পর্শ ছাড়াই সমুদ্র পৃষ্ঠের নীচে প্রান সৃষ্টির প্রধান উপকরন amino acid tryptophan প্রাকৃতিক উপায়ে সৃষ্টি হয়েছে বলে দাবি করেছেন বিজ্ঞানীরা।

সমুদ্র পৃষ্ঠের নীচে প্রান সৃষ্টির প্রধান উপকরন amino acid tryptophan প্রাকৃতিক উপায়ে সৃষ্টি হয়েছে
ছবিঃ Nature.com সমুদ্র পৃষ্ঠের নীচে প্রান সৃষ্টির প্রধান উপকরন amino acid tryptophan প্রাকৃতিক উপায়ে সৃষ্টি হয়েছে

বিজ্ঞানীরা দীর্ঘ গবেষণায় দেখেছেন যে, পৃথিবীতে প্রথম প্রান সৃষ্টি হয়েছে হয় ঠাণ্ডা না হয় গরম পরিবেশে। পৃথিবীতে প্রথম প্রান কি পৃষ্ঠের নীচে আগ্নেয় গিরির উত্তপ্ত পরিবেশে সৃষ্টি হয়েছে   নাকি চার্লস ডারউইন এর মতে, কোন এক ছোট্ট গরম জলাশায়ে?

সম্প্রতি বিজ্ঞানী মেনয গবেষনা করেছেন  সমুদ্র পৃষ্ঠের নীচে আগ্নেয় গিরির উত্তপ্ত জালা মুখ নিয়ে, যাকে বলা হয় “হাইড্রথারমাল ভেন্ট” যেখান থেকে গরম ঝরনার মত অ্যাল্কালাইন ও বিভিন্ন গ্যাস সমৃদ্ধ পানি নির্গত হয়। তিনি একটা প্রমান দেখিয়েছেন ও বলেছেন যে, হাইড্রথারমাল ভেন্ট এলাকায় একটা বিক্রিয়া সংগঠিত হয়েছে যেখানে, কোন জীবের সংস্পর্শ ছাড়াই প্রান সৃষ্টির প্রধান উপকরন amino acid tryptophan প্রাকৃতিক উপায়ে সৃষ্টি হয়েছে ।

হাইড্রথারমাল ভেন্ট এলাকায়  যেখানে সমুদ্র পৃষ্ঠের নীচে ম্যাগমা (magma) সমৃদ্ধ আগ্নেয়গিরি  থেকে  ব্লাক স্মকার চিমনি (black-smoker chimney)  তৈরি হয় যা কিনা প্রধান জিওলজিকাল ফিচার। এই ভেন্ট থেকে অধিক পরিমানে গ্যাস ও ধাতু সমৃদ্ধ আসিডিক পদার্থ সমুদ্রের জলে নির্গত হয়।

২০০০ সালে, অ্যাটলান্টিক মহা সাগরের মিড- অ্যাটলান্টিক- ওশান- ফ্লোর  থেকে এক ধরনের হাইড্রথারমাল ভেন্ট এর পরিবেশ আবিষ্কৃত হয়েছে যেখানে প্রান সৃষ্টির মত প্রাকৃতিক পরিবেশ আছে। এদিকে বিজ্ঞানীরা গবেষনাগারে ম্যাগমা (magma) সমৃদ্ধ হাইড্রথারমাল ভেন্ট এর পরিবেশ সৃষ্টির সিমুলেশন করে দেখিয়েছেন যে, কোন রকম জীবের অনুপস্থিতিতে প্রান সৃষ্টির প্রধান উপকরন অ্যামিনো এসিড  তৈরি করা যায়। যদিও বিজ্ঞানীরা এখন পর্যন্ত জানেন না কিভাবে অ্যাটলান্টিক মহা সাগরের মিড- অ্যাটলান্টিক- ওশান- ফ্লোর এর “লস্ট সিটি” নামে খ্যাঁত হাইড্রথারমাল ভেন্ট-এ এই অ্যামিনো এসিড তৈরি হল।

বিজ্ঞানী মেনয ও তার দলের সদস্যরা গবেষানায় দেখিয়েছেন যে, সাপোনাইট নামে একটি লোহাসমৃদ্ধ ক্লে-মিনারেল সম্ভবত  নাইট্রজেন কে প্রান সৃষ্টির প্রধান উপকরন অ্যামিনো এসিড  তৈরি করতে প্রধান ক্যাটালিস্ট হিসাবে কাজ করেছে। সাপোনাইট ক্লে-মিনারেল থেকে যে প্রক্রিয়ায় অ্যামিনো এসিড  তৈরি হয় এটাকে বলে সারপেন্টিনাইজেশান।

সারপেন্টিনাইজেশানঃ

সারপেন্টিনাইজেশান প্রান সৃষ্টির প্রধান উপকরন অ্যামিনো এসিড  তৈরি ও অন্যান্য জৈব যৌগ তৈরি করা  ছাড়াও আর দুটি কাজ করে যা কিনা প্রান সৃষ্টির জন্য সহায়ক।

১) সারপেন্টিনাইজেশান  তাপ বৃদ্ধি করেঃ  যেখানে সারপেন্টিনাইজেশান  বিক্রিয়া টা সংগঠিত হয় সেখাঙ্কার তাপমাত্রা ২০০ ডিগ্রি পর্যন্ত বৃদ্ধি পেতে পারে যা কিনা, হাইড্রেশন ও পার্শ্ববর্তী পাথর এ ভাঙন ধরায়। এভাবে অধিক তাপীয় পাথর টেকটনিক প্লেট মুভমেন্ট করার কারনে টেকটনিক প্লেট এর নীচে সেই সারপেন্টিনাইজেশান  বিক্রিয়ায় সৃষ্ট অ্যামিনো এসিড  ও অন্যান্য জৈব যৌগ সংরক্ষিত থাকে।  সমুদ্র পৃষ্ঠের নীচে আগ্নেয় গিরি থেকে  পুনরায় সমুদ্র পৃষ্ঠে চলে আসে। এভাবে প্রান সৃষ্টির উপাদান চক্রাকারে আবর্তিত হয়।

ভূতাত্ত্বিক রেকর্ড থেকে জানা যায় যে,  প্রথম প্রান সৃষ্টি হয়েছিল ৩.৪ থেকে ৪.৪ বিলিয়ন বছর আগে পৃথিবীর  সমুদ্র পৃষ্ঠের নীচে হাইড্রথারমাল  ভেন্ট এলাকায় কোন এক লোহা ও মাগ্নেসিয়াম সমৃদ্ধ মাফিক স্তরের খনিজ পদার্থে। পৃথিবী সৃষ্টির প্রথম ১ বিলিয়ন বছর এ কোন প্লেট টেকটনিক সৃষ্টি হয়নি তার কারন তখন  পৃথিবীর মান্টেল এর তাপমাত্রা ছিল অত্যধিক। ধীরে ধীরে সমুদ্র পৃষ্ঠের নীচে আগ্নেয় গিরি থেকে অগ্ন্যতপাত এর মাধ্যমে তাপ কমতে থাকে এবং সমুদ্র পৃষ্ঠে সিলিকেট ও লোহা সমৃদ্ধ খনিজ এর প্রাচুর্যতা বৃদ্ধি পায় যা কিনা সারপেন্টিনাইজেশান  বিক্রিয়ার জন্য সহায়ক। যে পরিবেশে ও পদ্ধতিতে জীবন সৃষ্টি হয়ে থাকুক না কেন, সারপেন্টিনাইজেশান নিঃসন্দেহে একটা বড় ভুমিকা রেখেছিল।

অ্যাটলান্টিক মহা সাগরের Lost City  নামে খ্যাঁত সারপেন্টিনাইজেশান বিজ্ঞানিদের কাছে একটা গুরুত্বপূর্ণ গবেষানার বিষয়। শনি গ্রহের একটা বরফ আচ্ছাদিত উপগ্রহ Enceladus অথবা  Jupiter’s Europa-এ এ রকম   Lost Cityর মত সারপেন্টিনাইজেশান পাওয়া গিয়েছে যদিও সেখানে পৃথিবীর মত কোন ভূতাত্ত্বিক পদ্ধতি পাওয়া যায় নি যা কিনা প্রানের সৃষ্টির জন্য সহায়ক। সবকিছু বিচার বিশ্লেষণ করলে বোঝা যায় হাইড্রথারমাল  ভেন্ট সিস্টেম প্রান সৃষ্টির জন্য সহায়ক পরিবেশ।

সুত্র; নেচার থেকে

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Show Buttons
Hide Buttons
%d bloggers like this: