বাংলাদেশে আগুন ও আমাদের করনীয়

আগুন
ফাইল ফটো; বনানী, ঢাকা তে আগুন এসময় রাস্তা ব্লক করে জনতা আগুন উপভোগ করছে।

সম্প্রতি বাংলাদেশের বনানী  ও চকবাজার এ  পরপর দুইটি বড় রকমের আগুন লাগার ঘটনা রীতিমত আশঙ্কার।

কি করনীয় আছে আমাদের?

নাগরিক হিসাবে এর কি কোন দায়িত্ব নাই? যখন আগুন লাগে আমরা উপভোগ করি। আর যখন নিজের মা ভাই, বোন আগুনে পুড়ে দগ্ধ লাশ হয় তখন হাহাকার করি।

পৃথিবীর কোন দেশে এত বেশি সংখ্যক আগুন লাগার ঘটনা বোধ করি বিরল।

এর সমাধান একমাত্র আমরাই করতে পারব। এবং আগুন লাগার ঘটনা অনেক কমিয়ে আনতে পারব। এর জন্য দরকার নিজেদের সচেতন হওয়া। আর কেউ যদি আমাকে সচেতন করতে না পারে, তবে   পিটিয়ে সচেতন করা আমাদের পুলিশের কাজ।

আপনার করনীয়ঃ

  1. নিজে সচেতন হউন  এবং বাসাবাড়িতে আগুন এর ব্যবহার পরবর্তী নিরাপদ স্থানে নিভিয়ে রাখুন।
  2. আগুনের ব্যবহারে নিজে দায়িত্বশীল হন ও অন্যকে দায়িত্বশীল করতে উৎসাহ দিন।
  3. গ্যাসের চুলা ব্যবহার পরবর্তী অবশই নিভিয়ে রাখুন। গ্যাস অপচয় করবেন না।
  4. সিগারেটের আগুন যেখানে সেখানে ফেলবেন না।
  5. বৈদ্যুতিক সার্কিট ও সংযোগ এর নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করুন। অনিরাপদ সংযোগ মেরামত করুন।
  6. দুর্ঘটনা পরবর্তী যে কোন ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে সঠিক ও বিশ্বস্ত ইনসুরেন্স এর আওতায় আসতে হবে।

বাড়ির মালিক বা এপার্টমেন্ট মালিকের করনীয়ঃ

প্রতিটি ভারাটিয়াকে ইনসুরেন্স এর আওতায় আনতে হবে।

প্রতিটি ফ্লরে অন্তত একটি অগ্নি নির্বাপক সিলিন্ডার রাখতে হবে।

ইমার্জেন্সি সিড়ির চাবি সব পরিবারকে দিতে হবে।

প্রত্যেক ভবনের পিছনে ইমার্জেন্সি সিড়ি থাকতে হবে দ্রুত নামার জন্য।

সর্বপরি সবাইকে সচেতন হতে হবে।

 

 

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Show Buttons
Hide Buttons
%d bloggers like this: