যে কারনে খালি পেটে লিচু মৃত্যুর কারন

খালি পেটে লিচু
খালি পেটে কাঁচা, ছোট, ও সবুজ লিচু অনিরাপদ

খালি পেটে কাঁচা, ছোট, ও সবুজ লিচু অনিরাপদ

লিচু একটু শুস্বাদু ফল।   পাকা লিচু  খাওয়া নিরাপদ  ও  স্বাস্থের জন্য উপকারী।   কিন্তু অপরিপক্ক কাঁচা , ছোট, ও সবুজ রঙের লিচু  খালি পেটে খাওয়া বিপদজনক।  প্রিয়  এই লিচু কিন্তু মৃত্যুর কারন হতে পারে। বিশেষ করে শিশুদের ক্ষেত্রে। বাংলাদেশ ও ভারতে মে-জুন মাস লিচুর মৌসুম। ভারতের বিহারে মজাফফরপুর এ লিচু খেয়ে শিশু মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। অপরিপক্ক লিচু বিভিন্ন রাসায়নিক উপাদান দিয়ে পাকিয়ে যা যদি শিশুরা খালি পেটে খায় তবে এমনটা হতে পারে। শিশুরা বেশি অনিরাপদ খালি পেটে লিচু ও মৃত্যুতে।

কি কারনে মৃত্যু হয়?

সাধারনত লিচু তে   হাইপগ্লাইসিন এ এবং মিথ্যলিন সাইক্লপ্রপাইলিন গ্লাইসিন hypoglycin A and methylenecyclopropyl-glycine (MCPG) নামে বিষাক্ত যৌগ থাকে। আর এই বিষাক্ত যৌগ সাধারনত ও পরিপক্ক লিচুতে বেশি মাত্রায় থাকে। খালি পেটে লিচু খেলে ঐ বিষের প্রভাবে প্রথমে, বমি, জ্বর, তারপর খিঁচুনি হয় এবং দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা না করালে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। রক্তের গ্লুকোজের মাত্রা হঠাত কমে যায়। আক্রান্ত শিশুর মুত্র পরীক্ষায় দেখা গিয়েছে রক্তের গ্লুকোজের মাত্রা কমে যাওয়া ও হাইপগ্লাইসিন এ এবং মিথ্যলিন সাইক্লপ্রপাইলিন গ্লাইসিন  এর সম্পর্ক রয়েছে।

হাইপগ্লাইসিন এ সাধারনত প্রাকৃতিক অ্যামাইনো এসিড। এটা অপরিপক্ক লিচুতে বেশি থাকে যা কিনা  অতিরিক্ত বমির কারন। অন্য দিকে,  মিথ্যলিন সাইক্লপ্রপাইলিন গ্লাইসিন  methylenecyclopropyl-glycine (MCPG) লিচুর বিচিতে থাকে। এটা একটা বিষাক্ত যৌগ। এটা সাধারনত দ্রুত রক্তের সুগার কমিয়ে দেয়, মানসিক অবস্থার পরিবর্তন,  বমি, অজ্ঞান, কোমা ও মৃত্যু ঘটাতে পারে।

কিভাবে প্রতিরোধ করা যায়;

একবার উপরোক্ত উপসর্গ দেখা দিলে বা  খালি পেটে লিচু খেয়ে যদি এমন হয়। শরীরে হঠাত সুগারের মাত্রা কমে যাওয়ার শিশুকে  সাপ্লিমেন্ট হিসাবে সুগার খাইয়ে সুগারের মাত্রা ঠিক করা যায়। তবে অবশ্যই ডাক্তার এর পরামর্শ নিতে হবে।

বিস্তারিত গবেষণা রিপোর্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Show Buttons
Hide Buttons
%d bloggers like this: